রোমান্টিক কষ্টের কবিতা

রোমান্টিক কষ্টের কবিতা কিছু কিছু কথা আছে বলতে পারিনা”এমন কিছু কষ্ট আছে সইতে পারিনা.এমন কিছু ফুল আছে তুলতে পারিনা.আর এমন1ta মনের মানুষ আছে ভূলতে পারিনা

Table of Contents

রোমান্টিক কষ্টের কবিতা.https://bloggpower.com/


 

এক বিন্দু জল যদি চোখ দিয়ে পড়ে,, সেই জলের ফোটা সুধু তোমার কথা বলে..

মনের কথা বুঝনা তুমি মুখে বলি তাই,, শত আঘাতের পরেও তোমায় ভালবেসে যাই..!!


মানুষ জীবনে ৬ বার হেরে যায়।(1)টাকার কাছে।(2)ভালবাসার কাছে।(3)

সময়ের কাছে।(4)বিবেকের কাছে।(5)বন্ধুত্বের কাছে।(6)অবশেষে মরণের কাছে।


কাঁদবে কি তখন ? চির নিদ্রায় ঘুমাবো যখন.. মনে রাখবে কি তখন ?

না ফেরার দেশে চলে যাবো যখন.. ।ডাকবে কি তখন ?? তোমার ডাকে সাড়া দিবনা যখন..।


রোমান্টিক কষ্টের কবিতা

 

অন্ধ ভালবাসার গন্ধ বেশি, নকল ভালবাসার সুবাস বেশি,

সত্য প্রেমে রাগারাগি»নকল প্রেমে হাসাহাসি, বুঝবে যেদিন খুজবে তাকে অবহেলা হারালে যাকে।

আমার যদি একটা পৃথিবী থাকত তাহলে সেখানে যেয়ে চিৎকার করে কাঁদতাম,

কেন যানো? তুমার দেওয়া স্মৃতি এত যন্রনা দেয় আমাকে যা সহিবার মত শক্তিআমার মাঝে নেই।


সপ্ন ভরা জীবনে দুঃখ যখন আসে,সবাই তখন পর হয়ে যায় থাকেনা

আর পাশে।কষ্ট যখন মনের মাঝে দিয়ে যায় ব্যথা, সবাই তখন ভুলে যায় সম্পর্কের কথা।


আসবি তুই কবে ? পাগলি তুই ফিরে।যদি কখনো আসিস ফিরে,

রাখব তোকে অনেক সুখে। তুই সুখে থাকবি, আর আমায় ভালোবাসবি।পাগলি_তুই_ফিরে_আয়।


কিছু কথা ভাবতে ভাবতে চোখে এল জল, জলকে বলিলাম তুই হঠাৎ

কেন বাইরে এলি বল?জল বললো চোখটি তোমার সুখের নীড়,কি করে সইবো বলো এত দুঃখের ভীড়।


সত্যি কি তুমি আমাকে ভালোবাসো, না কি এটা শুধুই ভালোবাসা নামক অভিনয়।

যদি তাই হয় তাহলে আমাকে আর জরিয় না তোমার জীবন নামক গোল চক্রে।

যতই জটিল হবে তোমার অভিনয় ততই কষ্ট বাড়বে আমার।হয়ত কোন একদিন ক্ষমা করে দিব আমি তোমাকে,

কিন্তু তুমি কি পারবে নিজেকে ক্ষমা করতে।হয়ত পারবে না, তাই বলছি ভালোবাসার নামে অভিনয় করো না।

তুমি কি আজো অভিনয় করছ ?

 

রোমান্টিক কষ্টের কবিতা


ছায়া হয়ে থাকবে তুমি এ মনের আঙ্গিনায়।আর ভালোবাসবে আমায় তোমার চোখের অদ্ভুত মায়ায়।

যদি ভালোবাসো আমায়,আমার এ হৃদয়টা দিয়ে দিব তোমায়। আমার হৃদয়টা রেখ যতনে,

অতঃপর তোমায় নিয়ে হারিয়ে যার পূর্ণ চাদানী রাতের লগ্নে।………..!!!!!!


আমার হৃদয় গহীনে তোমায় পেয়েছি কি সাধনে তুমি আমার কত যে আপন,

বুঝাবো তা কেমনে।এই জীবনে হারাবার নেইতো কিছু আর,

হারালো এই মন তোমাতে সুখের ঠিকানা নেই অজানা তুমি রয়েছো এ সাথে

তুমি এলে রাঙালে মন দুচোখে জ্বেলে দিলে রঙিন স্বপন আড়ালে…হারালো যত বিস্বাদের ক্ষণ।


হেমন্তে পাওয়া প্রেম তুমি,বলেছিলে কোন এক দিন রয়ে যাবে মোর মনের গহীনে।চিরকাল ভালোবেসে মোরে মাতাবে হেমন্তগন্ধে।

মনের হেমন্তে বেঁচে থাকার সরণিতে এক ফোঁটা ভালোবাসা দিও মোরে।

সেই ভালোবাসা দিয়ে হেমন্তের নিশিতে সাজিয়ে তোমারে আনব আপন আলয়ে।


কালের খেয়ায় স্বপ্ন দিচ্ছে পারি দুঃখের নীল অস্তরাগে।তোমায় ভালোবেসে কন্ঠস্বর বেদনার ঝড় হয়ে আসে।

অবিশ্বাসের মেঘে মোর কান্নাভেজা মুখ খানি ভাসে।মোর জীবন যেন বিদায় নেয় তোমার মৃত্যুর আগে।


রোমান্টিক কষ্টের কবিতা

 

আমি আছি শেষের পথে আর তুমি সূচনায়, শেষের পথে দাঁড়িয়ে ভালোবাসি আমি শুধুই তোমায়।

ভালো তোমায় বেসে একদিন যাব আধারে মিলিয়ে, আসব না আর আলোর পৃথিবীতে।

তুমি থেকো অনেক সুখে।তুমি সুখে থাকলে আধারে মিলবে আলোর সন্ধান, এটাই হবে তোমার ভালাবাসার প্রতিদান।


ফুলকুমারী তোমার পদ্ম আখির মায়ায় পরেছি।

চন্দ্রকিরন রাতে মোর চিেওর গহীনে তোমার প্রতিকৃতি দেখে তোমায় ভালোবেসেছি।

অবিনাশী কাল নিঃশঙ্ক চিেও তোমায় পাবার আশায় প্রহর গুনছি।

ও নীলকন্ঠী তুমি ভালোবাসলে মোরে ঝরবে না নেএনীর।অন্তর্জ্বালা যাবে মুছে হিমান্তের নিশিতে।

অতঃপর মোর জীবন নতুন ময়ূখ দেখবে।কলকন্ঠ পাখিরা নিশিদিন আমাদের খোঁজে যাবে।


আমি আগ্নেয় গিরির মতো জ্বলে উঠতে পারি, গলেও যেতে পারি মমের মতো।

নির্বিঘ্নে আমি হাসতে পারি, থাকে যদি বুকে হাজারও ক্ষত।

আমি হতেও পারি কারো মনের মানুষ, হতেও পারি কারো প্রিয়জন।আমি পারি যতটা নির্মম হতে,

হতে পারি ঠিক ততটাই দরদী।আমি সারাটা জীবন তোমাকে,

আগলে রাখতে পারি এ বুকে, নির্মম হয়ে তেমনি করে, ভুলেও যেতে পারি তোমাকে।


পাগলি তুই ফিরে আয়, আজো আছি তোর অপেক্ষায়।নিরবে দাঁড়িয়ে ঐ দূরে খোঁজে ফিরি শুধুই তোকে।

দিশাহারা আজ এই মাতালহাওয়া, বইছে মোর বুকে।তবু তোর জন্য এ হৃদয়, অষ্টপ্রদীপ জ্বেলে রেখেছে।

ফিরে তুই না এলে, অষ্টপ্রদীপ যে যাবে নিভে।


রোমান্টিক কষ্টের কবিতা

 

যখন নিরবে দূরে দাঁড়াও এসে,যেখানে পথ বেঁকেছে, তোমায় ছোঁতে চাওয়ার মূহুর্তরা।কে জানে,

কি আবেশে দিশাহারা।আজ আমিও ছুটে যাই সেই গভীরে,

আমিও ধেয়ে যাই কিনিবিঢ়ে। তুমি কি মরিচিকা,না ধ্রুবতারা তোমায় ছোঁতে চাওয়ার মূহুর্তরা।

কে জানে, কি আবেশে দিশাহারা…নাকি শুধুই মরিচিকা_______??


মিথ্যে অভিনয় আর কত??? এ বার বদলে ফেলো নিজেকে।আজ পরাজয় মেনে নিয়ে বলছি আমি,জয়ের নিশান কিন্তু আমিই পেয়েছি কারন, মিথ্যে হলেও তো বলেছিলে তুমি ভালোবাসতে মোরে পৃথিবীর সবচেয়ে বেশী।


কে আমি??? কতটুকু জানো আমায়???কতটুকু জানলে বলা যায়,তুমি সবটুকু জেনেছ আমায়।

মুখোশ পরে এক আমি আবার মুখোশের আড়ালে অন্য আমি।

তোমার অজানা হাজারও আমির ভিতরে আজ লুকিয়ে আছি আমি,শুধুই আমি।তোমার কল্পমায়ায় এক আমি আর আমার বাস্তবতায় আরেক আমি।

রোমান্টিক কষ্টের কবিতা

 

তাই বলছি আজ হাজারও আমির গভীরে হারিয়ে গেছি আমি।আর কখনো খুঁজে পাবে না তুমি।


একফোটা চোখের জল ঝরার চেয়ে এক ফোটা রক্ত ঝরা অনেক ভালো।

কারন,এক ফোটা রক্ত বের হতে হালকা ব্যথা লাগে আর এক ফোটা চোখের জল পুরো হৃদয় ছিড়ে বের হয়।


প্রতিটা দিন প্রতিটা রাত কষ্টের জলে ভাসি আমি, তবুও এ হৃদয় প্রতিটা মূহুর্তে জানতে চায় কেমন আছো তুমি।হয়ত ভালো আছো,

আর হয়ত বলছি কেন ভালোই তো আছো তুমি।মোরে ভুলে সুখ সমুদ্রে ডুবে আছো তুমি।

মোরে যদি থাকবেই ভুলে তবে ভালো কেন বেসেছিলে,

আর ভালোই যদি বেসে থাকো তবে মোরে ভুলে গেলে কেমন করে।আমি তো ভুলতে পারিনি তোমাকে, তোমার স্মৃতি গুলোকে।


রোমান্টিক কষ্টের কবিতা

তুমি তো আমার অহর্নিশ ভালবাসা ছিলে, তোমার কাছে আমি দূর আকাশের তারা চাইনি,

চাঁদ চাইনি; চাইনি আকাশের নীলটুকু।আমি জানি,

তুমি তা আনতে পারবেনা।

চাইনি কোন দামী গিফ্ট কারন প্রয়োজন ছিলনা আমার ওসবের।চেয়েছিলাম তোমার একটু ভালবাসা যা তোমার অবহেলার চাইতে অনেক কম।

আমি তুষ্ট হতাম অতো টুকুতেই কিন্তুু তুমি বুঝতে পারোনি আমাকে কারন মন থেকে অ্যাকসেপ্ট করোনি কখনও এই আমাকে।


এক চোখ কখনো আরেক চোখকে দেখেনা তবুও এক চোখের কিছু হলে আরেক চোখে অশ্রু না ঝড়িয়ে পারে না।


সাঁঝের বেলায় বসে আছি বৃষ্টির অপেক্ষায়।মেঘ করেছে বৃষ্টি হবে এটাই আশা,

আর এরই মধ্যে বেঁচে আছে কিছু ভালোবাসা।তাই শুধুই বসে বসে অপেক্ষা করা।


রোমান্টিক কষ্টের কবিতা

আনন্দ = f(x,y,z) x = কষ্ট,y = দুঃখ,z = বেদনা দুঃখ = বেদনা আবার,

বেদনা = কষ্টতাহলে, দুঃখ = কষ্ট = বেদনা অতএব আনন্দ – f(x,y,z) = 0


মাঝেমাঝে মনে হয় যদি তোমাকে দেখাতে পারতাম কতটা ভালোবাসি তোমকে। যেদিকে তাকাই শুধু তোমার স্মৃতি,

মনে পরে যায় ভালোবেসে ছিলাম কতটা শুধু তোমাকে। আধাঁরে ঘেরা আমার এই পৃথিবী আলো দিয়ে ভরিয়ে দিলে তুমি।

আমার এক নতুন জীবনের সূচনা করলে। তখন মনে হতো সময়ের কাটা যদি থামিয়ে দিতে পারতাম তবে হয়ত সারা জীবন এমনই সুখ থাকতে পারতাম।…..


অসহ্য যন্ত্রণা হচ্ছে,,, আমার চোখের দিকে তাকিয়ে দেখ…? যন্ত্রণা গুলো কেমন মুক্ত ভাবে ঝরে পরছে। আমি কাঁদছি – তুমি এটাই ভাবছো তো,,,? না, না, আমি কাঁদছিনা; কাঁদলে নোনা জল বের হতো।

আমার চোখে যে বর্ষণ তুমি দেখছ, তার স্বাদ নোনা নয়; তিক্ততা। আর বর্ণহীনও নয়; একটু নীলাভ। যন্ত্রণা গুলো আমার মাঝে আর থাকতে চায় না।

এ গুলো তো তোমারই দেওয়া,,, তাই তোমার কাছেই ফিরে যেতে চায় !!! পারবে কি এ গুলো গ্রহন করতে,,,??? প্রশ্নটা তোমার কাছে,,, উত্তরটা না হয় তোমারই কাছে থাকুক।


রোমান্টিক কষ্টের কবিতা

সুখের আকাশটা আজ,রাতের মতো কালো। সাজানো স্বপ্ন গুলো হয়ে গেছে এলোমেলো।


একদিন আমি আমার পথে হাঁটছিলাম, হঠাৎ তুমি এলে, আর হাঁত ধরে,: অচেনা পথে নিয়ে গেলে,

তোমায় বিশ্বাস করে ছিলাম, কিন্তু , জানতাম না, মাঝ পথে একা ফেলে চলে যাবে। # Don’t_tRy_plAy_wiTh_mE


তোমার সুখের জন্য….যদি তোমাকে ভুলে যেতে হয়, তাহলে আমি ভুলে যেতে রাজি আছি ।

ভুলতে হয়তো কোনদিনও পারবো না তবে ভুলে থাকার অভিনয় করতে পারবো….. # without_yoU_eVerYDay_iS_A_RaiNy_daY .


অন্য কারো হাতে তোমার সুখ আমানত দিও না, কারন সে হারিয়ে গেলে তোমার সুখকে আর তুমি খুজে পাবে না….!!!


দিনের সূর্য অস্তমিত হয়ে উদিত হয় রাতের চাঁদের যার আলো থাকলেও এর বিন্দু পরিমাণ আলোকপাত নেই রাতের কোন এক প্রহরীর উপর।হয়তো সে মনের মধ্যে রাতের নিঃশব্দতার রেখাপাত ঘটিয়ে নিরীহ অন্ধকারের মধ্যমনি হয়ে আছে।

আলোর কোলাহল ছেরে সে আঁকড়ে ধরেছে নিমজ্জিত হওয়া কোন এক মুহুরতকে যা তাকে দুরে রেখেছে সেই সুপ্রসন্ন কোলাহল থেকে।

রোমান্টিক কষ্টের কবিতা

না চাইতে যা পাওয়া যায়,তা সব সময় মূল্যহীন।তেমনি করে আমিও তোমার জীবনে মূল্যহীন।কারন,তুমি তো চাওনি আমাকে।

কিন্তু আমি চেয়েছি তোমাকে।আমার জীবনঅাত্মার গভীর প্রেম হয়তো তোমাকে পাওয়ার বাসনা করে ছিলো।তাই তুমি কখনো আমার জীবনে মূল্যহীন নও


আরও সুবিধার জন্য দযা করে আমাদের WebSite এর Android Software টি এখান থেকে ডাউনলোড করে নিন


আমি থাকবো তোমার অপেক্ষায় গুচ্ছপাতার মতো বুনন করে, কথামালা উপহার দেব বলে। সন্ধ্যা প্রদীপের আলোর মতো, মিষ্টি আলো তোমার মনে ছড়াবো বলে। আমি থাকবো তোমার অপেক্ষায়,

যেখানে তুমি তোমার শেষ কবিতার শিরোনাম রচনা করেছিলে। প্রকৃতির আদল অঙ্গে মেখে, তোমার জন্য অতি সাধের সাজ- সজ্জায় এই গোধূলি বেলায়,

একটু উচ্চ ভালবাসা দেবার একাগ্রতায় ঠিক সেখানটায়, আমি থাকবো তোমার অপেক্ষায়। আসবে কি তুমি, আমার ভালবাসা দুহাত ভরে নেয়ার আশায়।


সৃষ্টি হবে অন্যরকম গল্প আজ, আলোর নিচে সাজাবো আমি,

অন্ধকারের সাজ দেখে আবার আসেনা যেনো, তোমার চোখের পানি। হটাৎ করে দেখবে তুমি, হারিয়ে গেছি আমি।


কাউকে ভালোবাসলে বেশি কাছে যাবার চেষ্টা করতে নাই।

তাতে করে কাছে যাবার আকুতি দেখে সে হয়তো দূরে চলে যেতে পারে ।কেননা মানুষ সোজা পথের চেয়ে বাকা পথে হাটতে আনন্দ পায় বেশি।কিন্তু সব কিছু হারিয়ে সোজা পথেই আসতে হয়।

সেই সময়ে নতুন করে ভালোবাসার ইচ্ছা টা আর থাকে না।


বাঁধিনি হৃদয় পিঞ্জরে রেখেছি মুক্ত করে।যাবি যদি দূরেই পাখি, যা রে উড়ে করবোনা মানা তোরে..।


আকাশের ঐ মিটিমিটি তাঁরার সাথে কইবো কথা নাইবা তুমি এলে।

তোমার স্মৃতির পরশ ভরা অশ্রু দিয়ে গাঁথবো মালা নাইবা তুমি এলে…।



বেদনা মধুর হয়ে যায়, যদি তুমি দাও…….।মুখের কথাই হয় যে গান, যদি তুমি গাও…….!


অবুঝ বালিকা,ফেইজবুকে তোমার সাথে প্রথম পরিচয় থেকে কেমন যেন একটা ভাল লাগা কাজ করে।

এর পর একে একে কেমন করে যেন তোমার উপর একটা নির্ভরশীল হয়ে পরলাম।সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ফেইজবুকে কথা বলা কখন কোথায় কী হল সবই যেন তোমাকে জানাতে হবে।

তুমি কী বুঝ আমার জীবনে তুমি কতটা গুরুত্বপূর্ণ।তোমার নামটাও কখনো জানা হয়নি।জানতে চাইও না।আমি শুধু তোমাকে চাই।


শপনো ছিলো রাশি রাশি মিত্যা ভালোবাসা। তাইতো জানি তোমার জন্য চোখের জলে বাসা এতো ভালোবাসি তোরে বাসলিনা কেন বল।


বাড়িয়ে দাও তোমার হাত আমি তোমার হাতটা ধোরতে চাই & বাড়িয়ে দাও তোমার হাত তোমার হাতটি ধরে হাটতে চাই ।


হয়তো তুমি ও বাসবে ভালো, কিন্ত আমি থাকবো না শান্ত হয়ে ঘুমিয়ে যাবো,

আর কোনদিন জাগবো না ভালোবাসার অজুহাতে, তোমায় কাছে ডাকবো না আর কোনোদিন তোমার পথে, দাঁডিয়ে আমি থাকবো না।


জানিনা কিভাবে তোমার দেখা পাবো , জানিনা কিভাবে তোমাকে কাছে পাবো ,

জানিনা কতটা আপন ভাবো তুমি আমায় । শুধু জানি এই অবুজ মনটা অনেক মিস করে তোমায়।


মানছি আমার ভুল হয়েছিল , তোমায় মুখ ফুটে কখোনোও ভালবাসার কথা বলতে পারিনি, তবে দোষ তো তোমারও কম ছিল না,

একবারও আমার চোখের ভাষা পড়ার চেষ্টাও করোনি , নিরবতাকে না বুঝে ভেবেছো কখনও তোমায় ভালবাসিনি !!!


বৃষ্টিকে যদি ভালোবাসতাম হয়তো এতো জল উপহার পেতাম না, যত জল পেয়েছি তোমাকে ভালোবেসে।

বুঝতে পারিনি, এত বেশি মেঘ ছিল তোমার আকাশে। সত্যিই বড় বোকা ছিলাম, আর আজও বোকাই রয়ে গেছি।


আমি হয়তোবা তোর জন্য হাত কাটতে পারিনি,বাড়ি ছাড়তে পারিনি,কিন্তু আমি তোর জন্য প্রতিটা রাত,দিন চোখের জল ফেলতে পেরেছি।ভালবাসার যন্ত্রনা যে এতটা ভারী সেটা বুঝতে পারি নির্ঘুম রাতে।

যখন একাকি জেগে থাকি। যে তুই আমাকে এতো ভালোবাসতি,আর সেই তুই আজ নিজেকে আড়ালকরে নিলি।সত্যি আমার এগুলো লেখতে খুব কষ্ট হচ্ছেরে,চোখের জলে সব ভিজে যাচ্ছে,।তোকে যে খুব ভালবাসিরে ।।


বদলে গেছে অনেক কিছু, কিন্তু আমি আছি সেই আগেরই মতো। একটু কমেনি তোমার প্রতি আমার ভালোবাসা । সারা জীবন ভালোবেসে যাবো তোমায়।আমার পৃথিবীর বিরাট প্রান্তর তুমি। আমার কথা কি একটুও মনে পড়েনা তোমার ? জানি তোমারও মনে পড়ে । তবে কেনো থাকো দুরে।আগের মত কেউ আর কোন কাজে এখন জোড় করেনা ।

কারো মেসেজ দেখার জন্য এখন আর ভোরে ঘুম ভাংগে না।কেটে যায় দিন এখন একাকি । হারিয়ে ফেলেছি তোমাকে, তার থেকে বেশি হারিয়ে ফেলেছি নিজেকে।অনুভূতি গুলো শেয়ার করার মতো কেউ নেই।তোমার হাসিটা দেখবো বলে আজও আশায় আছি । এখোনো তোমার ফিরে আশার দিন গুনি,, যদি কখোনোও তুমি ফিরে অাসো ।


জীবনটা অনেক অদ্ভুত।কিছু সুখ , কিছু দুঃখ, কিছু ভালবাসা এ নিয়েই জীবন ।তারপরেও কিছু কিছু মানুষ আছে তারা সবার থেকে অনেক ভীন্ন। তারা সবার সামনে খুব ভালো থাকে , কষ্ট গুলো কাউকে বুঝতে দেয় না ।তার পাশের অনেকেই ভাবে সে হয় তো খুব সুখী ।কিন্তু সে মানুষটি যে নিরবে কাঁদে তখন সে দুঃখ দেখার বা বোঝার মতো কেউ থাকে না । অাসলে সব কষ্ট সবাইকে দেখানো যায় না কিছু কিছু কষ্ট মনের মধ্যে লুকিয়ে থাকে । সেগুলো হয়তো তার একান্ত আপন মানুষটিও সারাজীবন পাশে থেকে বুঝতে পারে না ।


মিতু আজ অনেক বদলে গেছি আমি । সত্যি বলছি এখন আর তোমাকে ভালবাসিনা, তোমাকে ভেবে মিছে মিছি আর কাঁদিনা। তুমিই যখন আমাকে ভালোবাসোনা তখন কেনো তোমার জন্য অশ্রু ঝড়াবো দুনয়ন হতে। সত্যি বলছি ভালবাসবো এখন শুধু আমাকে, যতো কবিতা লিখেছিলাম তোমার জন্য সব ছিড়ে ফেলেছি ডায়রীর পাতা হতে। এখন তোমার জন্য রাত জেগে আর কবিতা লিখিনা, এখন আমি রাত জাগি কষ্ট ভোলার সুত্র নিয়ে। ভালবাসার দাবি নিয়ে কখোনোও ছুটবোনা আর তোমার পিছু ধরে। শুধু দোয়া করো তোমাকে যেনো ভুলে থাকতে পারি ।

যতো ভালবাসা পেয়েছি তোমার কাছ থেকে ; দুষ্টু এই মন চায় আরো বেশি পেতে ; কি জানি তোমার মধ্যে কি আছে ; কেনো যে এ মন চায় তোমাকে আরো বেশি করে কাছে পেতে .!!


আবার ফিরে আসো অন্তত এক ঘন্টার জন্য…।নয়তো এক মিনিটের জন্য…অন্তত একটা মুহূর্তের জন্য…।বলবো না পাশে থাকতে ।বলবো না আর একটি বার নতুন করে ভালোবাসতে…।শুধু বলবো, তোমার দেয়া স্মৃতি গুলো নিয়ে যাও ।


ভেবেছিলাম তুমি আসবে! ভোরের কুয়াশায় হাটবো তোমার হাতটি ধরে।কিন্তু তুমি এলেনা ভেবে ছিলাম পড়ন্ত বিকেলে হয়তো গোধূলি লগ্নে তোমার দেখা পাবো! তখনো তুমি এলেনা ভেবে ছিলাম সন্ধ্যা তারাদের মাঝে তোমায় খুঁজে পাবো! অবশেষে খুজে পেলাম ঠিকই,কিন্তু তুমি ছিলো ঐ দূর আকাশে । আমার দিকে ফিরেও তাকালেনা। ভাবনা আমার ভাবনাই রয়ে গেলো বাস্তব আর হলোনা……!!


খাচার পাখি উরে গেলে যেমন আসে না আর ফিরে| সুখ হাড়ীয়ে গেলে তেমন আসেনা আর ঘুরে|র্ুখ যেন এক উরন্ত পাখি বাসা বাঁধেনা জীবন থেকে চলে গেলে ফির আসেনা | দুঃখ যেন পোষা পাখি পিছন ছারেনা।


জীবন তো বহমান নদী থেমে থাকেনা, অনেক কিছু আশা থাকলেও পাওয়া হয়না| আশা গুলো পরে থাকে শুধুই সৃতি হয়, জীবনের অনেক কিছু যায় হাড়িয়ে|


জানি ফিরবেনা এই মনের নিড়ে তবুও অপেক্ষায় থাকবো সারা জীবন ধরে ।


মিছে আশা করে লাভ কি?সত্যি এটাই যে তুমি কখনো আমার ছিলে না আর কখনো হবেও না।ভাবনায় এসে দূর থেকে চলে যাও আমাকে কাঁদিয়ে….।আমার কি অপরাধ ছিল? তোমাকে ভালবাসাটাই কি আমার অপরাধ ছিল….?যদি তাই হয়, তবে ক্ষমা করে দিও !


আজ স্মৃতির পাতা উল্টে দেখলাম কত মানুষ জীবন থেকে হারিয়ে গেছে।কত চেনা মানুষ , অচেনা হয়ে গেছে হয়তো কোন এক দিন ,আমিও অচেনা হয়ে যাবো এই পৃথিবী থেকে !!


আজ নিজে নিজে নীরবে কাঁদছি, যে কান্না হয়তো মরণ হলে শেষ হবে ।তবে সত্য বলতে কি জানো আমি তোমাকে আজও ঠিক আগের মতই ভালোবাসি ।


আমি জানি তুমি ভালো নাই, তুমি ভালো থাকতে পারো না কারণ,আমি তোমাকে ক্ষমা করে দিলেও আমার প্রতিটা দীর্ঘশ্বাস আর একেক ফোঁটা চোখের পানি তোমাকে কখনোই ক্ষমা করবে না এটা আমার অভিশাপ নাহ, এটা প্রকৃতির হিসাব।কাউকে কষ্ট দিয়ে কেউ ভালো থাকতে পারে না ।


জানি না আজ আমার কি হয়েছে, শূন্য মনের গহীন অতলে এক ঝড় উঠেছে !ভিষন ভাবে তোমাকে মনে পড়ছে, তোমার কথা ভাবতেই জল এলো দু’চোখের কোনে !কেমনে বলবো আমি-একটু খানি ভালোবাসি তোমায় ! সেই সাধ্য দেওয়া হয়নি আমায় !তবুও কেনো জানি তোমাকে অনেক ভালোবাসি !!


অতিথি পাখি হয়ে কারো জীবনে যেওনা হয়তো তুমি তাকে কিছুদিন হাসাবে॥কিন্তু তুমি যখন চলে যাবে আপন ঠিকানায়, সে সারা জীবন কাঁদবে শুধু তোমার বেদনায়।


তুমি একদিন আমার মত কষ্ট পাবে তুমিও আমার মত চোখের জল ফেলবে আর তুমি আমার কথা ভাববে কবে জানো? যে দিন তুমি আমার মত সত্যি ভালোবাসবে।


অনেক ভালোবেসে ছিলাম তোমাকে কিন্তু তুমি তা কখনো বুঝোনি বুঝবে কি করে ???তুমি তো আমাকে ভালোবাসনি।ভালোবাসা বুঝতে যদি আমাকে ভালোবাসতে।হয়তো একদিন ভালোবাসা কি বুঝবে, সে দিন নীরবে কাঁদবে।আমি আজও ভালোবাসি তোমায় । আর সারাজীবন এভাবেই ভালোবাসবো !!!


জীবনের শুরুতে কষ্টের সূচনা,হাজারো ব্যাথা নিয়ে আমার রচনা,যন্ত্রনার অন্ধ ঘরে নির্মম এক পরিহাস.চোখের জল আর বেদনা নিয়ে আমার জীবনের ইতিহাস।


তোমার মাঝে আমার সমস্ত সুখ লুকিয়ে ছিল !!!তাই তোমাকে চেয়েছিলাম সুখ পাবো বলে ! কিন্তু তুমি যা দিয়েছ সুখের বদলে তার কোন তুলনা হয় না, আসলেই তা অমুল্য এক কষ্ট আর যন্ত্রনা তোমার দেয়া কষ্ট আর যন্ত্রনা নিয়ে এখনো বেঁচে আছি সুখ পাবো বলে আমার সুখ মানেই তুমি !!


মন চায়, বিন্দু বিন্দু সুখের জলকণা দিয়ে, তোমায় ভিজিয়ে দিতে, আর তোমার কষ্টের পাথরগুলো শান্ত নদীতে ফেলে দিতে মন চায়, অবিরাম বৃষ্টির পথ ধরে হাটতে হাটতে, হারিয়ে যাই অজানা কোনো দেশে আর সেখানে নতুন ভুবন গড়ে তুলতে মন চায় ।শেষ জীবনের অন্তিম কালে পাশে থাকবে তুমি, আমার পানে চেয়ে।


মাঝে মাঝে খুব ইচ্ছে করে আমার নির্ঘুম রাতের কিছু মূহুর্ত তোমাকে দিয়ে দেই!! নির্ঘুম রাতের যন্ত্রনা একটু যদি তাতে বুঝতে তুমি!! জানি, একটা ক্ষন সহ্য করার ক্ষমতা নেই তোমার। এ যে ভীষন কষ্ট!! পারবে না সইতে তুমি!! কেন আমার আকুতি তোমাকে ছুতে পারেনা?? কেন এত দূরে তুমি ???


ভুল তোমার ও ছিলো, সেটা তুমি বুঝনি, রাগ আমার ও ছিলো, কিন্তু আমি দেখাইনি. ভুলে আমি ও যেতে পারতাম, কিন্তু চেষ্টা করিনি, কারন আমি তো ভুলার জন্য তোমায় ভালোবাসিনি।


কাউকে একবার মন দিয়ে দিলে, সেটা আর ফেরত নেয়া যায় না.!! কারো জন্য একবার ভালোবাসা সৃষ্টি হয়ে গেলে, সেটা আর কখনো ধ্বংস করা যায় না…!! সবকিছুই সয়ে যেতে হয় শুধু নীরবে, কিছুই করার থাকে না !!!


জানিনা এই অবুজ হৃদয় কার অপেক্ষাই আছে…….. জানিনা এই সরল মনে কার জায়গা হবে……… শুধু জানি হৃদয়ের ঘরে যাকে রাখব……… সারা জীবন তাকেই ভালবাসবো !!!!